বাংলাদেশে বিমানবন্দরের নিরাপত্তা বাড়াতে ব্রিটেনের প্রস্তাব

1449494772[1]অনলাইন রিপোর্টঃ  বাংলাদেশের বিমানবন্দরগুলোতে নিরাপত্তা জোরদার করতে বাংলাদেশ সরকারকে তাগাদা দিয়েছে যুক্তরাজ্য। মিশরের শার্ম আল শেখ থেকে উড়ে যাওয়া একটি রুশ বিমান সিনাইয়ে বিধ্বস্ত হওয়ার পর যুক্তরাজ্যে পরিবহন দফতর বাংলাদেশসহ বিশ্বের সবকটি দেশের বিমান চলাচল কর্তৃপক্ষকে এই তাগাদা দিয়েছে।
বলা হচ্ছে, বিধ্বস্ত রুশ বিমানের ভেতরে বোমা রাখা হয়েছিল। যা বিস্ফোরণের মূল কারণ। বিধ্বস্ত রুশ বিমানটিতে ২২৪ জন আরোহী ছিল যাদের সকলেই নিহত হয়েছে।
এই পরিস্থিতিতে বাংলাদেশের বিমানবন্দরগুলোর নিরাপত্তা ব্যবস্থা খতিয়ে দেখতে বৃটিশ কর্মকর্তাদের একটি দল ঢাকায় হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমান বন্দর পরিদর্শন করেছেন। এ বিষয়ে ঢাকায় নিযুক্ত বৃটিশ হাইকমিশনার প্রধানমন্ত্রী  শেখ হাসিনার সঙ্গেও কথা বলেছেন।
বিমানবন্দরের নিরাপত্তার ব্যাপারে তারা বাংলাদেশকে কিছু সুপারিশও করেছেন।
এদিকে দেশের বিমানবন্দরগুলোর নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে যেকোনো ধরনের আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণের নির্দেশ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। সোমবার দুপুরে সচিবালয়ে অনুষ্ঠিত মন্ত্রিসভার বৈঠক শেষে অনির্ধারিত এক আলোচনায় তিনি এ নির্দেশ দেন।
এসময় বেসরকারি বিমান ও পর্যটন মন্ত্রী রাশেদ খান মেনন বলেন, এয়ারপোর্টগুলোতে নিরাপত্তার জন্যে যথাযথ ব্যবস্থা নেয়া হচ্ছে কি না সেটাই তারা খতিয়ে দেখছেন। তিনি বলেন, বিমানটি যে এয়ারপোর্ট থেকে উড়ে যায় ওই বিমানের নিরাপত্তা নিশ্চিত করার দায়িত্ব সেদেশের।
মেনন বলেন, নিরাপত্তার সব ব্যবস্থাই বাংলাদেশের বিমানবন্দরগুলোতে নেয়া হয়েছে। তারপরেও সেটা আরো জোরদার করা হয়েছে। যাত্রীদের চেক ইনের সময়েও এই নিরাপত্তা বাড়ানো হয়েছে। আগে তাদেরকে বেল্ট, ঘড়ি বা জুতো খুলতে হতো না। কিন্তু এখন সেটা চালু করা হয়েছে। সাধারণ যাত্রীদের জন্যে যতোটা অসুবিধা হয় তারচেয়েও বেশি অসুবিধা হয় মন্ত্রী, সংসদ সদস্য, উচ্চ পদস্থ কর্মকর্তার মতো গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তি বা ভিভিআইপিদের জন্যে। দেখা গেছে, তাদেরকে বিদায় ও স্বাগত জানাতে বিমান বন্দরে প্রচুর লোকজন ঢুকে পড়ে।

Share This Post

Post Comment