পাকিস্তান প্রমাণ করলো সাকা মুজাহিদ তাদের চর : আসমা

Asma Jahangir - Advocate, Supreme Court of Pakistan 2

ব্রিকলেন রিপোর্টঃ  মানবতা বিরোধী অপরাধের দায়ে সালাউদ্দিন কাদের চৌধুরী ও আলী আহসান মোহাম্মাদ মুজাহিদের মৃত্যুদণ্ড কার্যকর নিয়ে পাকিস্তান সরকারের অতি আবেগি আচরণকে দ্বৈতনীতি মন্তব্য করেছেন দেশটির মানবাধিকার কর্মী আসমা জাহাঙ্গীর। মঙ্গলবার পাকিস্তানের ডন পত্রিকার অনলাইন সংস্করণে বলা হয়, সোমবার ইসলামাবাদ হাইকোর্টে সাংবাদিকদের সামনে আসমা জাহাঙ্গীর এই মন্তব্য করেন।
তাকে উদ্ধৃত করে দেশটির ইংরেজি দৈনিক ডন-এ বলা হয়, সরকার এই আচরণের মাধ্যমে শুধু এটাই প্রমাণ করল যে, বাংলাদেশে যাদের ফাঁসি দেয়া হয়েছে তারা আসলেই ছিল রাজনৈতিক চর। তারা পাকিস্তানের স্বার্থের জন্য কাজ করছিল।
আসমা জাহাঙ্গীর পাকিস্তান সরকারের সমালোচনা করে বলেন, ইসলামাবাদের এ আচরণে এমন ধারণা হওয়া স্বাভাবিক যে, নিজেদের নাগরিকের চেয়ে বাংলাদেশের বিরোধী দলের সদস্যদের জন্য তাদের ভালোবাসা অনেক বেশি।
তিনি বলেন, দেশের সামরিক আদালতে ও সৌদি আরবে পক্ষপাতদুষ্ট বিচারের মাধ্যমে পাকিস্তানের নাগরিকদের মৃত্যুদণ্ড দেয়া হলেও সে ব্যাপারে সরকার নীরব।
আশা প্রকাশ করে আসমা জাহাঙ্গীর বলেন, যথাযথ আইনি প্রক্রিয়ার তোয়াক্কা না করে পাকিস্তানে সেসব মানুষকে মৃত্যুদণ্ড দেয়া হয়েছে, সরকার তাদের ক্ষেত্রে একই ধরনের আবেগ ও আন্তরিক দেখাবে।
সাকা চৌধুরী ও মুজাহিদের মৃত্যুদণ্ড কার্যকর করা নিয়ে পাকিস্তানের পররাষ্ট্র দপ্তর ও স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী চৌধুরী নিসার আলী খানের উদ্বেগ জানানোর সমালোচনা করে তিনি বলেন, আগে পাকিস্তান সরকারকে নিজ দেশের নাগরিকদের নিয়ে আবেগ দেখাতে হবে। পরে বাংলাদেশের রাজনীতিবিদদের নিয়ে ভাবতে হবে।
প্রসঙ্গত, গত রোববার ঢাকায় সালাউদ্দিন কাদের চৌধুরী ও আলী আহসান মোহাম্মদ মুজাহিদের মৃত্যুদণ্ড কার্যকরের ঘটনায় উদ্বেগ প্রকাশ করে পাকিস্তানের পররাষ্ট্র দপ্তর এক বিবৃতি দেয়। ওই বিবৃতিতে পাকিস্তানের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র বলেন, সালাউদ্দিন ও মুজাহিদের দুর্ভাগ্যজনক মৃত্যুদণ্ড কার্যকর করায় আমরা গভীর উদ্বেগ প্রকাশ করলাম।

Share This Post

Post Comment