ব্রিটেনে প্যারিস আতঙ্ক; বিব্রত এশিয়ান কমিউনিটি

A passenger walks through Baker Street Underground station in central Londonজুয়েল রাজঃ এক সপ্তাহ পেরিয়ে গেলেও রক্তাক্ত প্যারিসের ক্ষত শুকায়নি। গণমাধ্যমের হিসাব অনুযায়ী অন্তত ১৪০ জন নিহত হয়েছেন। পরে ফরাসী প্রেসিডেন্ট ওলাঁদ জানান, সব মিলিয়ে নিহত হয়েছেন ১২৭ জন। আহতের সংখ্যা ১৮০। বলা হচ্ছে, ২০০৪ সালে মাদ্রিদে ট্রেনে বোমা হামলার পর ইউরোপে এটাই সন্ত্রাসী হামলার সবচেয়ে বড় ঘটনা। প্যারিসে বিদ্রুপ ম্যাগাজিন শার্লি এবদুতে হামলা চালিয়ে ২০ জনকে হত্যার দশ মাসের মাথায় আবারও এমন হামলার ঘটনা ঘটল। এই হামলাকে ‘আইএসের দ্বারা যুদ্ধ’ বলে অভিহিত করেছেন ওলাঁদ।
প্যারিসের ঘটনার পর নড়েচড়ে বসেছে ব্রিটেন, ঢেলে সাজিয়েছে তাদের নিরাপত্তা ব্যবস্থা। কিন্তু আতঙ্ক থেকে বের হয়ে আসতে পারেনি এখনো। বাঙালি অধ্যুষিত অলগেইট ইস্ট স্টেশন সকাল ৮টা ৪৫ মিনিটে সিকিউরিটি কারণ দেখিয়ে বন্ধ করে দেয়া হয়। ভোগান্তিতে পরেন অফিসগামী লোকজন। পরে জানা যায় অলগেইট ইস্ট স্টেশন সিকিউরিটি স্টাফ পুলিশ ডেকে আনে। পুলিশ যাত্রীদের স্টেশন থেকে বের করে নিয়ে আসে। ট্রেন চলাচল বন্ধ থাকে প্রায় ১ ঘণ্টা।
সন্ধ্যার পর লন্ডনের প্রাচীন আন্ডারগ্রাউন্ড স্টেশন বেকার স্ট্রীটে বোমা পাওয়া গেছে এমন ভীতি ছড়িয়ে পড়ে। পুলিশ এসে পুরো এলাকা বন্ধ করে দেয়। দ্বিতীয় দফা ভোগান্তিতে পড়েন অফিস ফেরত মানুষ। বেকারস্ট্রীট স্টেশনের পাশে সন্দেহজনক পরিত্যক্ত একটি গাড়ি উদ্ধার করেছে বলে সংবাদ মাধ্যমকে জানিয়েছে মেট্রোপলিটন পুলিশ।
প্যারিস হামলার পর থেকেই অনেকে পাবলিক ট্রান্সপোর্ট ব্যবহার করা এড়িয়ে চলছেন। কখন কি ঘটে যায় এই ধরণের একটা ভয় কাজ করছে অনেকের মাঝে। এশিয়ান বংশোদ্ভূত সাধারণ মানুষও বিব্রত বোধ করছেন। অনেকে বলেছেন রাস্তাঘাটে বের হলে মনে হয় লোকজন বুঝি সন্দেহের চোখে তাকাচ্ছে। যা সত্যিই খুব বিব্রতকর।
ইতিমধ্যে ব্রিটেনের নানা জায়গায় বিচ্ছিন্নভাবে বর্ণবাদী কিছু ঘটনারও সংবাদ পাওয়া গেছে। বাদামী চামড়ার মানুষ মানেই মুসলমান ও জঙ্গী এই ধারণা দিনদিন বৃদ্ধি পাচ্ছে বলে মন্তব্য করেছেন অনেকে।
গতকাল পূর্ব লন্ডনে বাসে যাওয়ার সময় পাশের আসনে বসা এক ভদ্রলোক তাঁর মেয়েকে বারবার ফোন করে অনুরোধ করছিলেন থিয়েটারে না যাওয়ার জন্য। টিকেটটি বাতিল করার পরামর্শও দিচ্ছিলেন। ফোনের কথাবার্তার রেশ ধরে বোঝা যাচ্ছিল ভদ্রলোকের মেয়ে ইতিমধ্যে সেখানে পৌঁছে গেছেন। তাই তিনি মেয়েকে বারবার সতর্ক থাকার পরামর্শ দিচ্ছিলেন।
ব্রিটেনে ২০০৫ সালে জুলাই মাসের ৭ তারিখে লন্ডনে ট্রেনে ও বাসে জঙ্গিদের আত্মঘাতী হামলায় ৫৬ জন নিহত হয়েছিল। আহত হয়েছিলেন প্রায় ৭০০ মানুষ। ৭/৭ এর সেই বিভীষিকাও যেন তাড়া করছে ব্রিটেনকে।

Share This Post

Post Comment