বাংলা সংস্কৃতি বিকাশের প্রত্যয় নিয়ে বিলেতে যাত্রা শুরু করলো সাংস্কৃতিক সংগঠন “মেঘদূত”

বিলেতে নতুন প্রজন্মের মধ্যে হাজার বছরের বাংলা সাহিত্য ও সংস্কৃতি ছড়িয়ে দেওয়ার প্রত্যয় নিয়ে যুক্তরাজ্য’র লন্ডনে যাত্রা শুরু করলো নতুন সাংস্কৃতিক সংগঠন “মেঘদূত” 24726146_10210867121849406_296307165_o
গত ১২ই নভেম্বর অনাড়ম্বর এক অনুষ্ঠানে সত্যব্রত দাস স্বপনকে সভাপতি, বিনায়ক দেব জয়কে সাধারণ সম্পাদক, গৌরীশ রায়কে কোষাধ্যক্ষ এবং গোলাম আকবর মুক্তা, রাজশ্রী মজুমদার, অসীম চক্রবর্তী ও মৌনিমুক্তা চক্রবর্তীকে সদস্য করে সাত সদস্যের কমিটি ঘোষণা করা হয়।

কমিটি ঘোষণা শেষে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে সংগীত পরিবেশন করেন বিনায়ক দেব জয়, সুনয়ন চৌধুরী, রাজশ্রী মজুমদার, শাহাদাত হোসেন, অসীম চক্রবর্তী , শ্রেয়া দাস এবং অরুন্ধতী দেব। গৌরীশ রায় এবং জিনি সেনের মনোমুগ্ধকর আবৃত্তি শেষে সমবেত কণ্ঠে আনন্দলোকে মঙ্গলালোকে গানটি গাওয়ার মধ্য দিয়ে অনুষ্ঠানের সমাপ্তি ঘটে।

নবগঠিত সাংস্কৃতিক সংগঠন মেঘদূতের কর্ম পরিকল্পনা জানতে চাইলে সংগঠনের সভাপতি বলেন “বিলেতে বেড়ে উঠা নতুন প্রজন্মের অনেকেই বাংলাদেশের ষড়ঋতুর বৈচিত্র, ঋতুভিত্তিক উৎসব, এবং আবহমান বাংলার বর্ণিল আনন্দ উৎসব উদযাপন সম্পর্কে অজ্ঞাত। অথচ আমাদের বাংলা সাহিত্য ও সংস্কৃতি নিয়ে গৌরবের অনেক কিছুই রয়েছে। আমরা আমাদের নতুন সংগঠন মেঘদূতের মাধ্যমে নতুন প্রজন্মের মধ্যে হাজার বছরের বাংলা সাহিত্য ও সংস্কৃতি কে তুলে ধরার চেষ্টা করবো”24580942_10215506776042634_337061705_n

নতুন প্রজন্মকে বাংলা সংস্কৃতির প্রতি আগ্রহী করতে নানা পরিকল্পনার কথা বলতে গিয়ে সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক বিনায়ক দেব জয় জানান “আমরা আধুনিক ডিজিটাল পদ্ধতি ব্যবহার করে যুগোপযোগী ভাবে বাংলা সাহিত্য ও সংস্কৃতিকে নতুন প্রজন্মের সামনে উপস্থাপন করার চেষ্টা করবো।

ঋতুভিত্তিক নানা আয়োজনের পাশাপাশি বাংলাদেশ সম্পর্কে নানা ধরণের তথ্যচিত্র, প্রাকৃতিক সৌন্দর্য, প্রাচীন নিদর্শন এবং ইতিহাস ও ঐতিহ্য কে নতুনদের সামনে তুলে ধরাই মেঘদূতের মুখ্য উদ্দেশ্য বলে জানান সংগঠনের কোষাধ্যক্ষ গৌরীশ রায় ।
মেঘদূতের আনুষ্ঠানিক সূচনা এবং সাংস্কৃতিক অনষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন লিপি ফেরদৌসী, এ কে এম চুন্নু, বাসন্তী সুধা দাস, শান্তি দাস , সুদাম ঘোষ, পম্পা দে প্রমুখ।

Share This Post