সিলেট অঞ্চলের যুদ্ধাপরাধীদের বিচার দাবি করলেন শফিক চৌধুরী

images (1)অনলাইন রিপোর্টঃ সিলেট অঞ্চলের সকল যুদ্ধাপরাধীদের বিচার দাবি করলেন সিলেট জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সাবেক সাংসদ শফিকুর রহমান চৌধুরী। তিনি বলেন সিলেটে মহান মুক্তিযুদ্ধের সময় অনেক নির্মম হত্যাযজ্ঞ, ধর্ষণ, লুটপাট আর অগ্নিকান্ডের হোতা যুদ্ধাপরাধী রয়েছে। তাদের বিচারের আওতায় আনা এখন সময়ের দাবি।

সিলেট কেন্দ্রিয় শহীদ মিনারের পাশেই শহীদ বুদ্ধিজীবী স্মৃতিস্তম্ভ সংলগ্ন স্থানে আয়োজিত অনুষ্ঠানে তিনি বলেন- মহান মুক্তিযুদ্ধের সময় সিলেটেও নানা হত্যাযজ্ঞ, ধর্ষণ, লুটপাট এবং অগ্নিসংযোগের ঘটনা ঘটে। এই অঞ্চলে অনেক চিহ্নিত রাজাকার রয়েছেন। বিশেষ করে সিলেটের বালাগঞ্জের অনেকগুলো গণকবর এইসব নির্মম ঘটনার স্বাক্ষী হয়ে আছে। এইসব হত্যাকান্ডে জড়িত যুদ্ধাপরাধীদের বিচার করা বর্তমান সময়ের দাবি।

সোমবার সকালে সমকাল সুহৃদ সমাবেশ সিলেটের উদ্যোগে শহীদ বুদ্ধিজীবী দিবস উপলক্ষে মুক্তিযুদ্ধের চিত্র প্রদর্শনী অনুষ্ঠানে বক্তব্যকালে তিনি আরো বলেন- জননেত্রী শেখ হাসিনা এদেশের যুদ্ধাপরাধীদের বিচারে অঙ্গীকারবদ্ধ ছিলেন। তার এই অঙ্গীকার পুরো বাস্তবায়ন হচ্ছে। কয়েকজন যুদ্ধাপরাধীদের বিচার হয়েছে এবং অনেকের বিচার কার্যক্রম চলছে। এ দেশ অচিরেই যুদ্ধাপরাধীমুক্ত হবে। তিনি সিলেট অঞ্চলের সকল যুদ্ধাপরাধীদের দ্রুত বিচারের আওতায় আনার দাবি জানান।

অনুষ্ঠানে তিনি বলেন- জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান মহান মুক্তিযুদ্ধে বাঙালি জাতিকে নেতৃত্ব দিয়েছিলেন। আর এদেশের মেধাবী সন্তানেরা স্বাধীনতা যুদ্ধের জন্য নানাভাবে জাতিকে অনুপ্রেরণা যুগিয়েছিলেন। হানাদার বাহিনীর লক্ষ ছিল বাঙালি জাতিকে মেধাবীশূন্য করা। তাই তারা এদেশের মেধাবী শিক্ষক, সাংবাদিক, চিকিৎসক, সংস্কৃতি কর্মীসহ বিভিন্ন পেশার বরেণ্য ব্যক্তিদের অপহরণের পর হত্যা করে। দেশ স্বাধীন হওয়ার পাকিস্তানী দোসরদের মন্ত্রী পদে আসীন করা হয়েছে। দেশে জঙ্গীবাদের রাজত্ব করা হয়েছিল। কিন্তু তাদের সেই চক্রান্ত সফল হয়নি। জাতির জনকের কন্যা শেখ হাসিনা ক্ষমতা লাভের পর দেশে উন্নয়ন আর সমৃদ্ধির বার্তা বইতে থাকে। তার বলিষ্ঠ নেতৃত্বে দেশ আজ উন্নয়নের পথে দ্রুত অগ্রসরমান। বিশ্বের কাছে বাংলাদেশ আজ এক আদর্শ রাষ্ট্র।

Share This Post

Post Comment